fbpx

অতিরিক্ত ঘুমাচ্ছেন? নিজেই নিজের বিপদ যেভাবে ডেকে আনছেন

সুস্থ থাকার জন্য একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের কত ঘণ্টার ঘুম জরুরি? বয়স ভেদে ছয় থেকে আট ঘণ্টা। যদি এর চেয়ে কম ঘুম হয় তো? তাহলেই বিপদ। আর যদি আট ঘণ্টার বেশি কেউ ঘুমায় তাহলে? তাতেও বিপদ।

গবেষকরা জানিয়েছেন, হার্টের সুস্থতার জন্য ছয় থেকে আট ঘণ্টার ঘুম উপকারি। কেউ যদি রোজ এই সময়ের চেয়ে বেশি বা কম ঘুমায় তাহলেই হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

জার্মানির মিউনিখের ইউরোপিয়ান সোসাইটি অব কার্ডিওলজি কংগ্রেস এই গবেষণা চালিয়েছে। তাদের দাবি, ‘হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে চাইলে অতিমাত্রায় কম ঘুম অথবা বেশি সময় বিছানায় থাকা ঠিক নয়।’

গ্রিসের অনাসিস কার্ডিয়াক সার্জারি সেন্টারের ড. ইপামিনোনদাস ফন্তাস এই গবেষণা প্রতিবেদনটি লিখেছেন। তার ভাষ্য, ‘আমাদের গবেষণা থেকে দেখা গেছে, ‘ঘুম কম হওয়া ও খুব বেশি ঘুমানো- দুটিই হার্টের জন্য ক্ষতিকর।’

তবে তিনি এ কথাও জানিয়েছে, ‘এই গবেষণা এখনো শেষ হয়নি। কেন এমনটা হয়, তা স্পষ্টভাবে জানার জন্য আরো সময় প্রয়োজন। তবে এতটুকু তো আমাদের জানাই যে, ঘুমের কারণে শারীরবৃত্তীয় কিছু প্রক্রিয়া পরিচালিত হয় হয়- যা হার্টের উপর প্রভাব বিস্তার করে।

১০ লাখ প্রাপ্তবয়স্কের উপর চালানো ১১টি গবেষণা বিশ্লেষণ করে এই গবেষণার ফলাফল পাওয়া গেছে। তাতে দেখা গেছে, ‘যারা ছয় ঘণ্টার কম ঘুমাতেন অথবা আট ঘণ্টার বেশি তারা হৃদরোগের ঝুঁকিতে ছিলেন অথবা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের সিনিয়র কার্ডিয়াক নার্স এমিলি ম্যাকগ্রাথ বলেন, ‘সুস্থ থাকার জন্য রাতে নির্বিঘ্ন ঘুম খুব জরুরি।’ তবে তিনি এই কথাও বলেছেন, ‘ছুটির দিনটায় একটু বেশি সময় যাদের ঘুমানোর অভ্যাস তাদের দুশ্চিন্তায় থাকার দরকার নেই। তবে যারা প্রতিদিন ঘুমের সমস্যায় ভুগেন। তাদের এখনই সতর্ক হওয়া উচিত।’

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE