জানেন ২০৫০ সালে কেমন হবে আমাদের পৃথিবী ? দেখলে চমকে যাবেন…

ভবিষ্যৎ সম্পর্কে জানার কৌতুহল প্রত্যেকটা মানুষের মধ্যেই বিরাজমান। আর প্রত্যেকটা মানুষই জানতে চায় তার ভবিষ্যৎ আসলে কেমন হবে। আজ থেকে ৩২ বছর পরে মানে ২০৫০ সালে কেমন দেখতে হবে আমাদের এই পৃথিবী, এই কৌতুহল আমাদের সবার মনেই প্রশ্ন করে থাকে।

১. বৈজ্ঞানিকদের মতে ২০৫০ সালে পৃথিবীর জনসংখ্যা কমপক্ষে ৯৬০ কোটি পাড় হয়ে যাবে, পুরো পৃথিবীর জনসংখ্যা শুধুমাত্র শহরগুলোতেই ৭০ শতাংশ করে বেড়ে যাবে। আর ২০৫০ সাল পর্যন্ত আমাদের ভারতবর্ষেও অনেক পরিবর্তন ঘটবে।

২. সমুদ্রবিজ্ঞানিদের তথ্য অনুযায়ী ২০৫০ সালের মধ্যে সমুদ্রের জলের উচ্চতা অনেক বেড়ে যাবে। যার ফলে পৃথিবীকে কমপক্ষে দুইবার বড় ধরনের বন্যার সম্মুখিন হতে হবে। এখনও পর্যন্ত আমরা সমুদ্রের জলের উচ্চতার কারণে ৫ টি বড় দ্বীপ পৃথিবী থেকে হারিয়েছি। আর আগামী ৩২ বছরের মধ্যে কমপক্ষ্যে ২ লক্ষ দ্বীপ জলের মধ্যে হারিয়ে যাবার সম্ভবনা রয়েছে।

৩. ২০৫০ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ মানুষের চাকরি থাকবে না, কারণ তখন বেশিরভাগ কম্পানিতেই রোবট দ্বারা কাজ করানো হবে।

৪. ২০৫০ সালের মধ্যে ক্যান্সারের মত দুরারোগ্য ব্যাধিগুলো অনেকাংশে কমে যাবে। আর এই ক্যান্সারের চিকিৎসাও আবিষ্কার হয়ে যাবে। আর ৮০ বছরের কম বয়সি কোন মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মরবে না। আর ক্যান্সারের মতন এই ভয়ঙ্কর রোগ চিরদিনের জন্য নিঃস্বেশ করে দেওয়া হবে।

৫. ২০৫০ সাল পর্যন্ত মায়াপিয়া নামক এক ধরনের রোগ মানুষের মধ্যে জেঁকে বসবে। এটা চোখের একটি রোগ, এই রোগের কারণে মানুষ দুরের কোন জিনিসকে ঘোলা এবং ঝাপসা দেখবে। খাওয়া দাওয়া এবং জীবনযাপনের ধরন পরিবর্তনের কারণে এই রোগ দেখা দেবে।

৬. ২০৫০ সাল পর্যন্ত আজ আমরা যেই ধরনের টেকনোলজি ব্যবহার করি তার চেয়ে বেশি অ্যাডভান্স এবং শক্তিশালী গ্যাজেট সবাই ব্যবহার করবে। সেটা মোবাইল হোক আর যেকোন ইলেকট্রনিক গ্যাজেড হোক, সবই খুব অ্যাডভান্স লেভেলের হবে। আর সেগুলোর মাধ্যমে আমরা ভার্চুয়াল রিয়েলিটি অনুভব করতে পারবো।

৭. ৩২ বছর পর মানে ২০৫০ সালে প্লেন ভ্রমন হবে আরও বেশি আরামদায়ক। তখন উড়োজাহাজগুলো হবে আরও বড়। উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে বাইরের দৃশ্য পরিষ্কার এবং বড় করে দেখা যাবে। তখন উড়োজাহাজ ও রকেটের মতন বাহনগুলি আরও বেশি দ্রুতগতিতে চলতে পারবে, যেটা খুব কম সময়ে নিজের ভ্রমন শেষ করবে।

৮. সামাজিকতার কথা যদি বলি তাহলে ২০৫০ সাল পর্যন্ত মানুষের মধ্যে ডিভোর্সের প্রবণতা অনেকগুন বেড়ে যাবে। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেওয়া আর সামনা সামনি কথা বলার হার কমে যাবে। কারণ তখন সবাই স্মার্ট ফোন আর সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে ব্যস্ত থাকবে। মাল্টিপাল ম্যারেগ বা অধিক বিয়ে এবং পশ্চিমা সংস্কৃতি পুরো পৃথিবীতে ছড়িয়ে পরবে।

২০৫০ সাল এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আমাদের এই তথ্যগুলি কেমন লেগেছে তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন
Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE