fbpx

প্রেশার কুকারে রান্না করা যায় না যে ৭টি খাবার

রান্নার সময় কমাতে খুবই কাজে আসে প্রেশার কুকার। বেশিরভাগ মানুষই গরু বা খাসির মাংস নরম করে রান্নার জন্য প্রেশার কুকার ব্যবহার করেন। অনেকে আবার সাধারণ খাবারও কম সময়ে রান্নার জন্য প্রেশার কুকার কাজে লাগান। এমনকি এতে পুডিং এবং কেক তৈরি করেন কেউ কেউ। কিন্তু প্রেশার কুকারে যা খুশি তাই রান্না করতে গেলে আপনি বিপদে পড়বেন। প্রেশার কুকারে রান্না করলে কিছু কিছু খাবার খুবই বিস্বাদ লাগে, কিছু খাবার রান্না করতে গেলে প্রেশার কুকার বিস্ফোরণ হবারও সম্ভাবনা থাকে! জেনে নিন ৭টি খাবারের কথা যা প্রেশার কুকারে রান্না করার কোনো দরকারই নেই-

স্টেক: ইদানিং বিভিন্ন রেস্টুরেন্টেই স্টেক পাওয়া যায়, তা জনপ্রিয় হয়ে উঠছে তরুণ-তরুণীদের মাঝে। কিন্তু এই স্টেক গ্রিল বা ফ্রাই করলে যে দারুণ ফ্লেভার পাওয়া যায় তা প্রেশার কুকারে কখনোই পাওয়া যাবে না। প্রেশার কুকারে স্টেক রান্না করতে গেলে সময় লাগবে অতিরিক্ত। এছাড়া এর স্বাদটাও হবে পানসে।

বার্গার প্যাটি: বার্গারের প্যাটি সাধারণত গ্রিল করা হয় এবং সেখান থেকেই আসে এর স্মোকি ফ্লেভার। বার্গার প্যাটি প্রেশার কুকারে দিলে তা সেদ্ধ মাংস ছাড়া আর কিছু মনে হবে না। বার্গারের প্যাটি এমনিতেই কম সময়ে রান্না হয়ে যায়, তা প্রেশার কুকারে দেওয়াটা অপ্রয়োজনীয়।

ফ্রাইড চিকেন: শুধু ফ্রাইড চিকেন নয়, যে কোনো খাবার ফ্রাই করার জন্য প্রেশার কুকারে দেওয়া অনুচিত। ফ্রাইড চিকেন হতে হবে মুচমুচে। কিন্তু প্রেশার কুকারে দিলে তা মোটেই মুচমুচে হবে না, বরং নরম এবং পানি পানি হয়ে থাকবে। এ কারণে ফ্রাইড চিকেন বা চিপস ধরণের খাবার প্রেশার কুকারে তৈরির চেষ্টা করবেন না। প্রেশার কুকারে স্যুপ বা ঝোল তরকারি রান্নাই ভালো।

পাউরুটি: যে কোনো ধরণের পাউরুটি বা বান প্রেশার কুকারে তৈরির চেষ্টা করলে দেখবেন, এর উপরটা মোটেই বাদামী হবে না। শুধু তাই নয়, ভেতরটাও শক্ত থেকে যাবে, বেক করা রুটির মতো নরম হবে না।

কুকি: প্রেশার কুকারে কিছু মিষ্টি খাবার ভালো রান্না হয়। যেমন দই, পুডিং বা কেক। কিন্তু কুকি কখনোই তৈরির চেষ্টা করবেন না এর ভেতরে। প্রথমত, ওভেনে বেক করলে কুকির ভেতরটা নরম থাকে কিন্তু বাইরেটা হয় মুচমুচে। প্রেশার কুকারে দিকে বাইরেটা মুচমুচে হবে না। দ্বিতীয়ত, প্রেশার কুকার ব্যবহারের চেয়ে বেক করলে কুকি তৈরি হতে সময় কম লাগবে।

নুডলস: নুডলস এমন একটি খাবার যা রান্না করতে গেলে পানি ফেনা হয়ে প্রেশার কুকার ভরে যেতে পারে এবং এর ভালভ আটকে যেতে পারে। এর ফলে বিস্ফোরণ হওয়াও অস্বাভাবিক নয়।

মাছ: মাছ এমন একটি খাবার যা খুব কম সময়েই সেদ্ধ হয়ে যায়। একে প্রেশার কুকারে দেওয়াটা একেবারেই অনর্থক। এছাড়া ভাজা মাছের দারুণ ফ্লেভারটাও এতে থাকবে না।

সূত্র: হাফিংটন পোস্ট

আপনি দেখেছেন কি?

মুরগির মাংসে বেশি ফুড পয়জনিং, করণীয় কি?

ফুড পয়জনিং বা খাদ্যে বিষক্রিয়া বলতে খাবার থেকে সংক্রমণকে বুঝায়। ব্যাকটেরিয়া বা টক্সিনযুক্ত খাবার খেলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *