fbpx

শসা দিয়ে তেলাপোকা দূর করবেন যেভাবে, পদ্ধতি দেখে নিন

শোয়ার ঘর কিংবা রান্নাঘর আরশোলার উপদ্রবে কি আপনি নাকানি চোবানি খাচ্ছেন? অনেক চেষ্ঠা করেও কোনো লাভ হয়নি? উড়তে থাকা আরশোলা দেখে আর ভয়ে জড়োসড়ো না হয়ে এবার চুটকি-তে আরশোলা -তাড়ান চোখের নিমেশে।

এতদিন তো বাজার চলতি স্প্রে ব্যাবহার করেছেন৷ তাতে খুব একটা লাভ হয়েছে বলেও তো মনে হয়না৷ বরং তাতে ক্ষতিই হয় বেশি৷ এইসব পেস্ট কম্ট্রোলে থাকে বিষাক্ত পদার্থ৷ যা খাবারে পরলে অসুখ অবধারিত৷ তবে এবার এইসব ঝক্কি হাটিয়ে ফেলুন ঘরোয়া উপায়তেই৷

দোকান থেকে কিছু অ্যালুমিনিয়ামের ফয়েল কিনে আনুন৷ তারমধ্যে ছোটো ছোট করে শশা কেটে রেখে দিন রান্নাঘর কিংবা শোয়ার ঘরে৷ফয়েল না পেলেও চিন্তা করবেন না৷

অ্যালুমিনিয়ামের যে কোনও পাত্রে অর্থাৎ খালি ডিব্বা বা বাটিতে শশা কেটে রেখেদিন যেখানে আরশোলার উপদ্রব সব থেকে বেশি৷ আরশোলা থেকে মুক্তি পাবেন চটজলদি৷ শুধু তাই নয় আপনার পকেটেরও শাশ্রয় হবে৷

বেশ কিছু গবেষনায় দেখা গেছে অ্যালুমিলিয়ামের সঙ্গে শশার টুকরোর গন্ধ মিশে যেই গন্ধ বেরোয় তা আরশোলার চির শত্রু৷ আর এই কারনেই শশার টুকরোয় আপনার ঘর থেকে পগারপার হবে আরশোলারা৷

জেনে নিন গোলমরিচের ৫ গুণাগুণ

রান্নাঘরে গোলমরিচ তো সবারই থাকে৷ কিন্তু জানেন কী এই গোলমরিচের গুণাগুণ৷ কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই গোলমরিচ ওষধিরও কাজ করে৷ সকালে খালি পেটে ইষদুষ্ণ পানির সঙ্গে যদি গোলমরিচ খেতে পারেন তা আপনার বহু সমস্যার সমাধান করবে৷

১. আয়ুর্বেদ শাস্ত্র বলে, খালি পেটে গোলমরিচ সেবন করলে তা মানবদেহে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে৷ যা শরীরকে সুস্থ রাখতে এবং বিভিন্ন সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করার শক্তি দেয়৷ যাদের গ্যাসের সমস্যা রয়েছে তাদের জন্যও গোলমরিচ খুব উপকারী৷

২. ডিহাইড্রেশনের সমস্যা থাকলে এই গোলমরিচ কিন্তু অব্যর্থ৷ হাল্কা উষ্ণ পানির সঙ্গে গোলমরিচ খান৷ এটি আপনার শরীরে পানির অভাব তৈরি হতে দেবে না৷ ত্বকের রুক্ষ্মতা হঠাতেও এর জুড়ি নেই৷

৩. গোলমরিচ কিন্তু অতিরিক্ত ফ্যাট কমাতেও কার্যকরী৷ ইষদুষ্ণ গরম পানির সঙ্গে গোলমরিচ খেলে শরীরের অতিরিক্ত ফ্যাট কমে৷ ক্যালরি বার্ন করতেও উপকারী৷ যাদের সর্দি লাগার ধাত আছে তারাও গোলমরিচ খেলে উপকার পাবেন৷

৪. কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকলে পানির সঙ্গে গোলমরিচ খেলে উপকার পাবেন৷ এক কাপ পানিতে লেবুর রস ও গোলমরিচ গুঁড়া মিশিয়ে পান করুন৷ সামান্য বিট লবনও দিতে পারেন৷ কিছুদিন খেলেই এর উপকারিতা বুঝতে পারবেন৷

৫. বলবর্ধক হিসাবেও ব্যবহার করা হয় গোলমরিচ৷ হাল্কা গরম পানিতে গোলমরিচ মিশিয়ে খান৷ টানা কয়েকদিন খেলেই বুঝবেন কাজে এনার্জি পাচ্ছেন৷ অ্যাসিডের সমস্যা দূর করতেও কার্যকরী গোলমরিচ৷ শরীরে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখতে গোলমরিচ খুবই উপকারী৷

আপনি দেখেছেন কি?

আপনার শিশু আঙুল চোষে? জেনে নিন প্রতিকার

আঙুল চোষা এমন একটি অভ্যাস যা অনেক শিশুর মধ্যে দেখা যায়। তবে এতে চিন্তিত হওয়ার …