হাবিবুরের স্ত্রী ছেলে পুত্রবধূ সবাই মাদক ব্যবসায়ী

রাজধানীতে কক্সবাজার-ঢাকাগামী গ্রিনলাইন বাস থেকে পেটভর্তি ৭ হাজার ২০০ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১০ এর একটি দল তাকে আটক করে। তার নাম মো. হাবিবুর রহমান (৬৭)।

র‍্যাব-১০ এর দাবি, আটক হাবিবুর সপরিবারে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত। এর আগে গত জানুয়ারিতে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় তার স্ত্রী, পুত্র ও পুত্রবধূ মাদক আনার সময় র‍্যাব-১০ এর হাতে আটক হন।

র‍্যাব-১০ এর উপ-অধিনায়ক মেজর মো. আশরাফুল হক জানান, গোপন তথ্য ছিল গ্রিনলাইন বাসে রাতে একটি ইয়াবার চালান আসবে। ওই তথ্যের ভিত্তিতে অভিযানে যায় স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি মো. শাহীনুর চৌধুরী ও এএসপি মো. শহিদুল হক মুন্সীর সমন্বয়ে একটি বিশেষ দল। কদমতলী থানার মাতুয়াইল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে মুক্তি ফিলিং স্টেশনের সামনে পাকা রাস্তার ওপর কক্সবাজার থেকে ঢাকায় আসা গ্রিনলাইন বাস আটকে তল্লাশি চালানো হয়।

সেখানে মাদক ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমানকে ৭ হাজার ২০০ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়। তিনি সবার নজর এড়িয়ে ইয়াবা বহনের জন্য ৪ হাজার পিস ইয়াবা ছোট পলিথিনে মুড়িয়ে খেয়ে পেটের ভেতরে নিয়ে বহন করছিলেন।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, আটক হাবিবুর রহমান পরিবারসহ দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। প্রতিনিয়ত তিনি কক্সবাজার থেকে বিভিন্ন কৌশলে মাদক পাচার করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে আসছিলেন। হাবিব নিজে ও পরিবারের অন্য সদস্যরা পারিবারিক উপার্জনের মাধ্যম হিসেবে মাদক ব্যবসাকে বেছে নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জানুয়ারি হাবিবুর রহমানের স্ত্রী, ছেলে এবং ছেলের বউ কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ইয়াবা পাচারের সময় ইয়াবাসহ র‍্যাব-১০ এর হাতে আটক হন। তার বিরুদ্ধে কদমতলী থানায় মাদক আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আপনি দেখেছেন কি?

ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের চিহ্নিত করেছেন নিপুণ রায়

রিমান্ডে থাকা বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী ভিডিও ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের …

Optimization WordPress Plugins & Solutions by W3 EDGE